January 17, 2019

নয়




 

বিদেশী গল্পের ছায়া অবলম্বনে লেখা সাতটা গল্প আর দু’টো মৌলিক গল্প নিয়ে আমার গল্প সংকলন ‘নয়’ বেরোচ্ছে ২০১৯-এর কলকাতা বইমেলায়। বার করছে সৃষ্টিসুখ প্রকাশনী। রোহণের সৃষ্টিসুখ।

বইয়ের প্রচ্ছদ করেছে রোহণ। অনেক সাদা, অল্প রং মিলিয়ে আমার মনের মতো প্রচ্ছদ। তবে আরও মনের মতো দিয়েছে বইয়ের নাম।

বইয়ের নাম নিয়ে ভাবনাচিন্তা চলছিল এপ্রিল মাস থেকে। আমার পছন্দের নামগুলো শুনে অর্চিষ্মান মাথা নাড়ছিল, অর্চিষ্মানের সাজেসশন শুনে আমি মাথা চুলকোচ্ছিলাম। আমাদের দুজনের শর্টলিস্টেড নামগুলো শুনে রোহণ বলেছিল, ভেবে দেখি। তারপর ভেবেচিন্তে ও নাম রেখেছে ‘নয়’। সোজাসাপটা, ঝাড়াঝাপটা ‘নয়’। আমাদের আগের নামগুলোয় গল্পের এসেন্স-টেসেন্স, থিম-টিম গোঁজার অনেক চেষ্টা করেছিলাম, তারপর রোহণ বলল, গল্পের এসেন্স গল্পকেই প্রকাশ করতে দাও, কুন্তলাদি।

'নয়'-এর নাম 'নয়', কারণ বইতে ন'টা গল্প আছে।

রোহণ যেটা না জেনেই নামটা দিয়েছে, সেটা হচ্ছে ‘নয়’ আমার অন্যতম ভালোবাসার সংখ্যা। প্রিয়তম নয়। ভিড় ভালোবাসি না বলে আমার প্রিয় সংখ্যা এক, কিন্তু আমি বিশ্বাস করি একের থেকেও ইন্টারেস্টিং হল ‘নয়’। তাছাড়া নয় আমার জীবনে বার বার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় ফিরে ফিরে এসেছে। আমার প্রথমবার বাড়ির বাইরে থাকার ঠিকানা ছিল ‘রুম নাম্বার নাইন’। আমার জীবনে বিভিন্ন সময়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা দখল করে রাখা মানুষের জন্মদিন ন’তারিখ কিংবা জন্মদিনের যোগফল নয়।

নয়-এর অধিকাংশ গল্প আপনাদের চেনা। পাঁচটা গল্প (চক্ষুদান, ননীবালা, দিদিমার ভাবনা, বিচার) চার নম্বর প্ল্যাটফর্মে পড়েছেন। খানদুয়েক (বুবুনের মা, রানি) অবান্তরে পড়েছেন। আর সাতকে নয় করার জন্য দু’খানা গল্প (ঠাউরুন, ঠাম্মার ভ্রমণকাহিনি - বয়স্ক মহিলাদের হিরোর চরিত্রে দেখতে যে আমার কত ভালো লাগে, সদ্য রিয়েলাইজ করেছি। অর্চিষ্মান বলছে এটা আগাথা ক্রিস্টি এফেক্ট। মিস মার্পল তো বটেই, ওঁর বেশিরভাগ গল্পেই বয়স্ক মহিলাদের কি-ভূমিকা থাকে। আমার এ প্রভাবে প্রভাবিত হতে আপত্তি নেই, মহাজ্ঞানী মহাজন যে পথে করে গমন…ইত্যাদিপ্রভৃতি) আমি নিজে লিখেছি, একেবারে মাথা থেকে বানিয়ে। সে দুটো আপনারা আগে কোথাও পড়েননি।

নয়-এর গল্পগুলোর একটা সুতো আছে, সব গল্পেরই মেন রোলে মেয়েরা। সে সব ব্যাখ্যা বইয়ের ব্যাককভারে দেওয়া আছে, নিচের ছবি থেকে পড়ে নিতে পারেন। 




পুরনো গল্পগুলো অবিকল পুরনো চেহারাতেই বইতে যায়নি অবশ্য। ঝাড়াইবাছাইয়ের দরকার আছে জানতাম। নিজের পুরনো লেখা ফিরে পড়ার থেকে প্রাণঘাতী অভিজ্ঞতা আর কিছু হতে পারে বলে আমার জানা নেই। একেকটা লাইন পড়ি আর মনে হয় মেঝে খুঁড়ে ঢুকে যাই। প্রতিটি গল্পই সারিয়েছি। কয়েকটা গল্পের গোটা গোটা প্যারাগ্রাফ বাদ পড়েছে (লেখা সারানো, অন্তত আমার ক্ষেত্রে দেখেছি, সর্বদাই কমানোতে পর্যবসিত হয়। ঘষামাজা করতে করতে ভয় হয় গল্পটা শেষমেশ না এক লাইনে গিয়ে দাঁড়ায়।) আর সবগুলোরই বাক্যবিন্যাস, শব্দব্যবহার বদলেছে। রোহণ ফাইন্যাল ম্যাটারটা পাঠানোর পর আমি মোটের ওপর চোখ বুলিয়ে ছেড়ে দিয়েছি কারণ এতকিছুর পর পড়তে বসলেও শিউরে ওঠার মতো ভাষার কারিকুরি বেরোবে। রোহণের পায়ে পড়তে হবে, এগুলো ছেপো না প্লিজ। আর একটু সময় দাও, সারিয়ে নিই। সে রিস্কে যাইনি।

শেষ করার আগে একটা কথা বলি। বইটার উৎসর্গপত্রে একজনেরই নাম লেখা আছে। অর্চিষ্মানের। নয়-এর নয় হয়ে ওঠার পেছনে অর্চিষ্মানের কেরামতি তো আছেই, কিন্তু উৎসর্গটা সেটার জন্য নয়। অর্চিষ্মান সারাদিনে তিনবার আমার সঙ্গে ফোনে কথা বলে, মরমে মরে গিয়েও রেস্টোর‍্যান্টে আমি খাবারের ছবি তোলা পর্যন্ত অপেক্ষা করে খাওয়া শুরু করে, আমার মন রাখতে এন ডি টি ভি-র বদলে নাপতোল চ্যানেল দেখে, সমাজের একজন মোটামুটি উৎপাদনশীল, কর্মক্ষম সদস্য হিসেবে আমার জীবনযাপন সম্ভব করায় এবং যাবতীয় ঠ্যাকনা দিয়ে দিনযাপনের ওয়্যার অ্যান্ড টিয়ারে আমার ক্ষয়া ঘুঁটের মতো ঝুরঝুর ঝরে যাওয়া প্রতিহত করে। এ সবের জন্য ওকে একটা ওভারঅল থ্যাংক ইউ বলার ছিল, থাকবে চিরদিন, এই সুযোগে বলে নিলাম।

কিন্তু লেখার জন্য যদি কৃতজ্ঞতা কাউকে জানাতে হয়, সে লেখা রোজকার ব্যাখ্যানই হোক, ছায়া অবলম্বনেই হোক, মৌলিকই হোক, তবে সে অবান্তর, আর অবান্তর বলে যে হেতু আসলে কেউ নেই, অবান্তরের আড়ালে রক্তমাংসের যাঁরা আছেন তাঁরা। অর্থাৎ আপনারা। অবান্তরের প্রতিটি পোস্ট আপনাদের জন্যই লিখি, এই বইটাও আপনাদের জন্যই লেখা হয়েছে। আরও যদি বই লেখা হয় কোনও দিন, সে সবও আপনাদের জন্যই হবে। কাজেই উৎসর্গের পাতায় যার নামই থাকুক না কেন, জানবেন প্রতিটি বই, প্রতিটি গল্প, আমার আঙুল থেকে বেরনো প্রতিটি অক্ষরই আসলে আপনাদের, অবান্তরের বন্ধুদের, উৎসর্গ করা। এই আমি আমার মন ছুঁয়ে বলে রাখলাম।

‘নয়’ যদি আপনারা কেউ প্রি-অর্ডার করতে চান, লিংক এই রইল।

প্রি-অর্ডার নয়ঃ https://sristisukh.com/bf19/product/নয়


69 comments:

  1. মন্দির ওহি ব... না, মানে... বইটা কিনবই। ইনশাল্লাহ!
    এই সংকলনটার জন্য আমার মতো অনেকেই যে অধীর আগ্রহে অপেক্ষমান ছিলেন, তা রোহণ জানেন। বসতে পেলে খেতে চাওয়ার ধাঁচে আমরা অবিলম্বে 'রহস্যের রানি', সেই ব্যোমকেশের মারাত্মক প্যাস্টিশটা, এবং আরও গল্প দু'মলাটের মধ্যে চাইব, এ বিষয়েও নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন। জয় 'নয়'।

    ReplyDelete
    Replies
    1. হাহা, থ্যাংক ইউ থ্যাংক ইউ, ঋজু। রহস্যের রানী বইতে 'রানি' নাম নিয়ে আছে। আপনার মুখে ফুল চন্দন চপ কাটলেট পড়ুক। নেক্সট বইটার আগে আরও পাঁচ বছর বিশ্রাম যেন না নিতে হয়।

      Delete
  2. 'নয়' এর সাফল্য কামনা করছি। আন্তরিক ভাবে।

    ReplyDelete
  3. Osadharon. khub khub bhalo lagche Noy dekhe. Onek obhinondon. Onek bhalobasa aapnar jonne.

    ReplyDelete
    Replies
    1. ধন্যবাদ, ধন্যবাদ, ইন্দ্রাণী।

      Delete
  4. বৈজয়ন্তীJanuary 18, 2019 at 12:26 AM

    এবার বইমেলাটা মিস করা যাবেনা দেখছি।

    নয় সংখ্যাকে ভালোবাসা নিয়ে হাই ফাইভ...
    নয় নয় করে নিরানব্বইটা বই হোক.. এই কামনা করি।

    ReplyDelete
    Replies
    1. মুখে ফুচকা, মটর কা পানি, আলুকাবলি, আরও ভালো ভালো যা যা পড়ার পড়ুক, বৈজয়ন্তী। শুভেচ্ছার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

      Delete
  5. খুব ভালো খবর, অনেক অভিনন্দন | নয় নামটা খুব ভালো হয়েছে | বই আর লেখিকা সম্পর্কে যা বলা হয়েছে বই না পড়েও একদম একমত তাতে | অবান্তরের পাঠিকা হিসেবে খুব গর্ব বোধ করছি | ebook হিসেবে কি কখনো পাওয়া যাবে? International card বোধহয় নেবেনা |

    ReplyDelete
    Replies
    1. থ্যাংক ইউ, অমিতা। কার্ডের ব্যাপারে রোহণকে জিজ্ঞাসা করব।

      Delete
  6. Abhinandan....abhinandan.....abhinandan.....
    Majhe dudin jwor e ketre chhilam, aaj sokale ei post ta porar porei sorir er songe songe montao bhalo hoye gyalo :) :)
    Noy er jonyo onek onek shubheccha roilo. r amar jonyo readbengalibooks to acchei :) :)

    ReplyDelete
    Replies
    1. অসংখ্য ধন্যবাদ, অরিজিত। আপনার মতো বন্ধুরা না থাকলে হত না। জ্বর সেরেছে আশা করি। সাবধানে থাকবেন।

      Delete
  7. FAcebook e Rohon er post thekei jante perechhi boitar kotha. Boimela sangroho korbo. Onek shubhechchha notun boitir jonyo.

    ReplyDelete
    Replies
    1. থ্যাংক ইউ, সায়ন।

      Delete
    2. Boi hate peyechhi. Kalkei pora shuru korlam. :-)

      Delete
    3. আরে আরে কী কাণ্ড। পড়া শেষ হলে যদি জানান কেমন লেগেছে বাধিত হব।

      Delete
  8. দারুণ খবর !! আগের বইটা তো আছেই এইটাও কিনতে হবে। অভিনন্দন ।

    ReplyDelete
    Replies
    1. থ্যাংক ইউ, প্রিয়াঙ্কা।

      Delete
  9. শুভেচ্ছা। কালই দেখলাম রোহন ফেবুতে বইখানা নিয়ে লিখেছে।

    শুভব্রত

    ReplyDelete
    Replies
    1. থ্যাংক ইউ, শুভব্রত।

      Delete
  10. Replies
    1. হাহা, থ্যাংক ইউ, তিলকমামা।

      Delete
  11. Abaah khub anonder khobor je apnar lekha boinela te prokashito hochche. Amader shubhokamona to sathe thakchhei... khub bhalo thakun notun bochhore

    ReplyDelete
    Replies
    1. নববর্ষের শুভেচ্ছা জানবেন আপনিও, সুস্মিতা। নয়-এর প্রতি শুভকামনার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

      Delete
  12. ei boitar jonya onekdin opekkha chhilo. eta jogar korboi. tobe Mini mittirer prem take ki dumolate ana jeto na?

    ReplyDelete
    Replies
    1. থ্যাংক ইউ, চুপকথা। আমি না ওই গল্পটার কথা একদম ভুলেই গেছি। ওটা পরে কোথাও বার করার চেষ্টা করব, প্রমিস।

      Delete
  13. Replies
    1. অসংখ্য ধন্যবাদ, চন্দ্রচূড়।

      Delete
    2. বইটা এখনো আসেনি। প্রি অর্ডার গুলো পাঠানো হয়েছে কিনা একটু খবর নেবে?

      Delete
    3. রোহণ আমাকে জানিয়েছিল আজ থেকে প্রি-অর্ডারের বই পাঠানো শুরু হবে, চন্দ্রচূড়।

      Delete
    4. তাহলে অপেক্ষার আর বেশি বাকি নেই। 👍

      Delete
    5. আশা করা যায়।

      Delete
  14. অনেক অভিনন্দন দিদি।আপনার প্রথম বইটাও আমার খুব প্রিয়। চেনা ডাক্তার অচেনা ডাক্তার আমার আর বাড়িস সকলের প্রিয় লেখা

    ReplyDelete
    Replies
    1. থ্যাংক ইউ, ঋতম। নয় হওয়ার পেছনে তোমার আক্ষরিক অবদান আছে।

      Delete
  15. durdanto, apurbo, thrilling! long overdue also. anek abhinandan!

    ReplyDelete
    Replies
    1. থ্যাংক ইউ, থ্যাংক ইউ, কাকলি।

      Delete
  16. Replies
    1. 2, 3 ফেব্রুয়ারি, শনি রবি যাব ভাবছি, অদিতি।

      Delete
  17. খুব ভাল খবর। বইটা অবশ্যই পড়ব। যদিও যে গল্পগুলোর নাম বলেছেন, সে গুলো পড়া। তবে ছাপার হরফে পড়ার মজাই আলাদা। নিশ্চই পড়ব। বইমেলা যাওয়া বন্ধ করেছি ১১ বছর হলো। কুঁজোরও চিত হতে ইচ্ছে করে। তাই অতি উৎসাহে গত কয়েকমাসে কজন প্রকাশককে নিজের লেখা টেখা পাঠিয়ে দেখতে গেছিলুম যদি কেউ ছাপে। পাত্তা টাত্তা পাইনি।

    ReplyDelete
    Replies
    1. ধন্যবাদ, সোমনাথ। আমি শুনেছিলাম বা পড়েছিলাম কোথাও একটা যে লেখক হওয়ার প্রথম ধাপ হচ্ছে রিজেকশনের মুখোমুখি হওয়া। আপনি লেগে থাকুন, এটাই বলতে পারি।

      Delete
    2. ধুস, অত খাটুনি কে খাটে? ওই ব্লগে আছে, ওই ভাল। বইটি হাতে এলে পড়ে আপনাকে আবার জানাবো।

      Delete
    3. অলরাইট, সোমনাথ।

      Delete
  18. Kuntala, besh kaekmash age ami apnar duto post-e comment korechilam, apnio amar nam niye sundor ekta uttor diyechilen, bodhoy mone thakte pare :)
    tarpor theke ami nirbak, kintu niyomito pathok! tobe eto bhalo khobor ta poRe abhinondon ar ekanto shubhechha na janiye ki thaka jay?! ar sei utsahe ami boi-ta pre-order o kore dilam, bohu bohudin pore kono notun bangla lekhok/lekhika-r boi kinlam :)

    ReplyDelete
    Replies
    1. অসংখ্য, অকুণ্ঠ ধন্যবাদ, শমীক। মন ভালো করে দিলেন আপনি। মনে আছে বৈকি। যদিও পরের প্রশ্নটা উল্টো প্রমাণ করতে পারে। তবু ঝুঁকি নিয়ে করেই ফেলছি। আপনি কি অচল সিকি-র শমীক?

      Delete
  19. Eire, na amar sathe achal, sachal kono siki-r i kono somporko nei, satyi bolte ami bohudin holo siki dekhi-i ni, adhla tao kichu age majhesajhe haate asto :)
    ta noy-er proti apnar jerokom bhalobasa, achal siki-r proti tototai birokti mone hoche? :P
    Noy amaro priyo sonkhya, tobe setar karon holo eke niye goNit er besh kichu karikuri kora jay :D

    ReplyDelete
    Replies
    1. ei comment ta sambhob hole delete kore din, bujhte na pere dubar chole geche :O

      Delete
    2. দেখেছেন, গোলমাল করেছি। আর একজন শমীকের অচল সিকি নামের একটি ব্লগ আছে, তিনিই আপনি কি না ভাবছিলাম। অচল সচল কোনও সিকির প্রতি আমার বিরক্তি নেই, প্রমিস, যে রেটে বুড়োচ্ছি, নিজে ওই দশা প্রাপ্তি হব অচিরে কাজেই বিরক্তির প্রশ্ন নেই। নয় গাণিতিকভাবে ইন্টারেস্টিং জানি, তবে খুঁটিনাটি জানি না। ব্যক্তিগত ভালোলাগাটুকুই সম্বল।

      Delete
    3. hnya oi blog ta samporke age jantam na, apnar ager comment-ta pore search kore khuje pelam. ami apnar blog-e prothom comment korechilam Murder "on" the Orient Express niye post-e 'on' ar 'in' niye bhul dhoriye diye, amar abar oi bodobhyas ta ache :(
      jak, adhir agrohe boi-tar janya apekhha korbo, Rohan Kuddus ke ektu bolben boi-ta boimela te prokash hoye gele pre-order karee-der ektu chotpot pathyie dite :) isshhh, kotooooodin kolkata boimela-te jaini :(

      Delete
    4. রোহণ এ সব ব্যাপারে খুবই দায়িত্বশীল, শমীক, আশা করি যথাসময়ে বই হাতে পেয়ে যাবেন। আমিও পাঁচ বছর বাদে বইমেলা যাচ্ছি এবার।

      Delete
    5. Boimela-ta boi officially berolo? Ar janen ki Rohon pre-order karee-der boi gulo pathalen kina? :P

      Delete
    6. আমি রোহণকে মেল করেছি, শমীক। ও যা-ই জানাবে আমি এখানে আপনাকে জানিয়ে দেব। অপেক্ষা করানোর জন্য দুঃখিত।

      Delete
    7. Anek dhonyobad! Apni boimela te jan ni?

      Delete
    8. গিয়ে চলেও এলাম তো। সে নিয়ে লিখব পোস্ট, আগে অমৃতসরের ব্যাকলগ শেষ করি।

      Delete
    9. Bah, apekhha te roilam :)

      Delete
    10. শমীক, রোহণ এইমাত্র মেলের উত্তর দিল, প্রি-অর্ডারের বই সামনের মঙ্গলবার থেকে পাঠানো শুরু হবে লিখেছে।

      Delete
    11. jah, ese pouchalo na to ekhono :( Rohan-er email ID ki share kora jabe, tahole ami ekbar email kore dekhtam.

      Delete
    12. দুঃখিত, শমীক। এই যে রোহণের ইমেল।

      rohonkuddus@gmail.com

      Delete
    13. পেলেন, শমীক?

      Delete
  20. Khub bhalo khobo! Nischoi porbo.

    ReplyDelete
  21. Abhinandan Kuntala di.. wait korchilam erokom ekta news er..

    ReplyDelete
    Replies
    1. থ্যাংক ইউ, ঊর্মি।

      Delete
  22. এটা কিনছিই ^_^ । ভারী খুশীও হয়েছি ^_^

    ReplyDelete
    Replies
    1. তোমার সঙ্গে দেখা হয়ে দারুণ লাগল, প্রদীপ্ত। সৌগতর সঙ্গেও।

      Delete
  23. সৃষ্টিসুখে যখন আছে, কিনছিই। জানুয়ারি মাসে গেছিলাম তখন জানতাম না যে তোমার বই বেরিয়েছে। এবার গেলে অবশ্যই নিয়ে আসব আর বিশ্বজিৎ দা তো আছেই।

    ReplyDelete
    Replies
    1. ধন্যবাদ, অনুজিৎ।

      Delete

 
Creative Commons License
This work is licensed under a Creative Commons Attribution-NonCommercial-NoDerivs 3.0 Unported License.