February 07, 2014

চায়ের পাতা যতক্ষণ ভিজছে



সেই পাঁচমিনিট বাজেখরচ না করে কী কী প্রোডাকটিভ উপায়ে ব্যয় করা যায় সেই নিয়ে এই পোস্টটায় নানারকম আইডিয়া দেওয়া আছে। ওটা ফুডব্লগ, কাজেই পরামর্শ সবই রান্নাঘরসংক্রান্ত। কী কী করা যেতে পারে, তার বদলে আমি বরং লিখি বাস্তবে আমি কী কী করে থাকি। দেখুন তো আপনাদের সঙ্গে কোনও কাজ মেলে কি না।

চায়ের পাতা যতক্ষণ ভিজছে---ততক্ষণ আমার কাজ হলঃ

১। টুক করে অবান্তরের স্ট্যাটস্‌ চেক করা।

২। এখনও হাত দিয়ে পায়ের পাতা ছুঁতে পারছি কি না, পরীক্ষা করা।

৩। নখ কাটা।

৪। একবার আলতো করে ভাবা, বারান্দা থেকে শুকনো কাপড়জামা তুলে এনে ভাঁজ করে যথাস্থানে রাখলে কেমন হয়?

৫। চানাচুর খাওয়া।

৬। মাকে ফোন করা। হ্যালো, মা? আজ তোমাদের কী ডিনার গো?

৭। নিজেদের ডিনারের প্ল্যান করা।

৮। কপালের ঠিক মাঝখানে এভারেস্টের হাইটের ব্রণটায় ওষুধ লাগানো।

৯। একবার আলতো করে ভাবা, সিংকে জমা বাসনগুলো মেজে ফেললে কেমন হয়?

১০। চুল আঁচড়ানো।

১১। টুক করে আরেকবার অবান্তরের স্ট্যাটস্‌ চেক করা। ইস্‌ কেউ কমেন্ট করছে না কেন?

১২। টেলিফোনের চার্জার খোঁজা।

১৩। আগের সপ্তাহে তৈরি করা রুটিন ছিঁড়ে ফেলে নতুন রুটিন তৈরি করা।

১৪। জল খাওয়া। আমি আজকাল দিনে মিনিমাম তিন লিটার জল খাওয়ার চেষ্টা করছি। সবাই বলছে তাহলেই নাকি আমার স্কিন ক্যাটরিনা কাইফের মতো হয়ে যাবে।

১৫। একবার আলতো করে ভাবা, এইবেলা বাজারটা গুছিয়ে ফেললে কেমন হয়?

১৬। বিছানার ওপর থেকে বই আর খবরের কাগজের ডাঁই সরিয়ে...ইউরেকা! চার্জার!

১৭। অবান্তর পোস্টের আইডিয়া লেখা।

১৮। ইউটিউব সার্চে গিয়ে british tv mystery full episodes টাইপ করে দেখা নতুন কিছু বেরোয় কি না।

১৯। পেজমার্কের জায়গাটা খুলে দু’পাতা পড়া।

২০। বয়াম খুলে তলার দিক থেকে মারি বিস্কুটের একটা ভাঙা টুকরো বার করে খাওয়া।

২১। খেতে খেতে নতুন করে ডায়েটিং-এর শপথ নেওয়া। এটাই লাস্ট, আর যখনতখন খুচুরমুচুর খাব না।

২২। ঠোঁটে বোরোলিন মাখা।

২৩। অবান্তর রিফ্রেশ। মাগো, এখনও কেউ কমেন্ট করেনি। হয়ে গেল। সব শেষ। আর কোনওদিন কেউ অবান্তর পড়বে না। ভগবান, আমার সঙ্গেই কেন ভগবান?

২৪। দুঃখের চোটে আরও দুমুঠো চানাচুর খাওয়া। সব যখন শেষই তখন আর ডায়েটিং করে লাভ কী?

২৫। চানাচুর চিবোতে চিবোতে আকাশের দিকে তাকিয়ে তাকিয়ে ভাবা, এখনও জীবনে কত কিছু করার বাক্‌ . . . ইয়েস্‌স্‌স্‌স্‌! ফাইভ মিনিটস্‌ হ্যাভ এক্সপায়ারড। বাব্বাহ্‌। বাঁচা গেল। ছাঁকনিটা কই গেল আবার। অ্যাই, টিভিটা একটু চালাও না গো, আমি চা নিয়ে আসছি।


16 comments:

  1. hahaha...totokhon e cha r cha nei.....:)

    ReplyDelete
    Replies
    1. হাহা রাখী, তাহলে পঁচিশটার বদলে কুড়িটা কাজ করতে হবে, বল?

      Delete
  2. Replies
    1. থ্যাংক ইউ ইনিয়া।

      Delete
  3. Replies
    1. ধন্যবাদ ধন্যবাদ ইচ্ছাডানা।

      Delete
  4. মাত্র ৫ মিনিটে আপনি ২৫টা কাজ কি করে করেন??? আমার তো প্ল্যান করতে করতেই ২৫ মিনিট বেরিয়ে যায়!! :(
    তবে পোষ্টটা খুব মজাদার :)

    ReplyDelete
    Replies
    1. আরে পাঁচ মিনিট অনেক সময় অরিজিৎ। আপনিও চেষ্টা করলে এই সব কাজ, প্লাস আরও অনেক কিছু করে ফেলতে পারবেন। তবে কিছুই না করে প্ল্যান করাও ভালো। আমি অনেক সময় সেটাও করি।

      Delete
  5. oto chanachur khele brono mote kombe na..are chanachur er mato ekta pocha jinish khao ki kore bapu!

    ReplyDelete
    Replies
    1. কী সাংঘাতিক! চানাচুর পচা! এবার তো আপনি বলবেন কাঁচা মুলো দারুণ ভালো খেতে। তবে চানাচুরের সঙ্গে ব্রণর যে একটা পজিটিভ এবং স্ট্যাটিসটিক্যালি সিগনিফিক্যান্ট সম্পর্ক আছে সেটা মানছি।

      Delete
    2. কাঁচা মুলো খেতে আমার বেশ ভালো লাগে। তবে চানাচুর আর ব্রনমুক্ত মুখ এই দুটোর মধ্যে একটা বেছে নিতে বললে আমি চোখ বুজে চানাচুর বেছে নেব।

      Delete
    3. আমিও সুগত।

      Delete
  6. Pnach, ekush aar chobbish ta amar sathe milechhe.:)

    ReplyDelete
    Replies
    1. হাই ফাইভ, হাই ফাইভ অমিতা। চানাচুরের জবাব নেই।

      Delete
  7. ami ajke ii prothom obantor porchi (courtesy Abhishek Mukherjee er blog ). sesh theke suru kore eta ii best laglo (majhe onek kota porini o ).. baki gulo kichu din e r modhye nischio pore felte parbo.
    thanks

    ReplyDelete
    Replies
    1. অবান্তরে স্বাগতম প্রিয়াঙ্কা।

      Delete

 
Creative Commons License
This work is licensed under a Creative Commons Attribution-NonCommercial-NoDerivs 3.0 Unported License.