June 29, 2012

সিরিয়াল মোনোগ্যামিস্ট#৩ - প্রেম না নারীস্বাধীনতা?



টাইমস স্কোয়্যারে লভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট হওয়ার একই গল্প একশো পঞ্চান্ন বার শোনা কিংবা বিচের ধারে একশো পঞ্চান্ন রকম ভঙ্গিতে তোলা আলিঙ্গনাবদ্ধ ছবি দেখার থেকেও অস্বস্তিকর যদি কিছু থেকে থাকে সেটা হল বন্ধুদের প্রেম ভেঙে যাওয়ার সাক্ষী থাকা।

অস্বস্তিকর এবং বেদনার। সামনে থেকে একজন পছন্দের মানুষকে যন্ত্রণা পেতে দেখা সবসময়েই কষ্টকর। তাও আবার অকারণে। ডাক্তারের চেম্বারে ব্যথার চার্ট টাঙানো থাকে দেখেছেন? এক থেকে দশ পর্যন্ত ব্যথা অ্যাসেন্ডিং অর্ডারে সাজানো? পেটব্যথা মাথাব্যথা হাঁটুকনকন যতরকম সমস্যার জন্য আমাকে যখনই ডাক্তারখানায় যেতে হয়, ডাক্তারবাবু যতবারই আমাকে চার্ট দেখিয়ে জিজ্ঞাসা করেন কতখানি ব্যথা করছে, আমি সর্বদা দশ নম্বর ব্যথার স্মাইলিটা দেখিয়ে দিই। ডাক্তারবাবু প্রতিবারই অবিশ্বাসী মুখ করে আমার দিকে তাকান কিন্তু আমার খালি মনে হয় এর থেকে কম ব্যথা করছে বললে যদি সিরিয়াসলি না নেয়?

প্রেম ভেঙে যাওয়ার ব্যথাটা হচ্ছে চার্টের এক নম্বর ব্যথা। বিশ্বাস করুন আমি একটুও কমিয়ে বলছি না। যতদিনেরই পুরনো প্রেম হোক না কেন, যত মেড ইন হেভেন প্রেমই হোক না কেন, জীবনের বেশির ভাগ ট্র্যাজেডিই প্রেমে ব্রেক আপ হওয়ার থেকে বেশি করুণ। বেশি ব্যথার। ভেঙে গেছে মানে ভাঙারই ছিল। জোড়াতালি দিয়ে আর বেশিদিন চলত না। কাজেই কান্নাকাটি না করে পরের প্রেমটার চেষ্টায় লেগে পড়ুন। আর যদি প্রেমকে কাঁচকলা দেখিয়ে একা একাই বাঁচতে পারেন তাহলে আমার তরফ থেকে হাই ফাইভ রইল। ওয়ে টু গো।

কিন্তু এটা প্রেমিকপ্রেমিকাদের বোঝায় কার সাধ্য। তাঁদের দোষ নেই। কেউই বোঝেনা, আমিও বুঝিনি। সারাদিন মুখে কুটোটি না কেটে, কেঁদে চোখমুখ ফুলিয়ে বাসস্ট্যান্ডে বসে থেকে একটার পর একটা বাস ছেড়ে দিয়েছি। মনে হয়েছে, বাস? বাড়ি যাওয়া? টিফিন খাওয়া? আমি বলে কিনা মরেই যাচ্ছি আর এখন এসব তুচ্ছ জাগতিক ব্যাপার নিয়ে মাথাঘামানো?

কাজেই সেদিন দরজা খুলে দেওয়ার পর যখন ম গোমড়া মুখে ভেতরে ঢুকে সোফার ওপর বসে পড়ে বলল, “ইট’স ফিনিশড” তখন আমি ওর পাশে এসে চুপ করে বসে রইলাম।

একটু পরে কান্নার বাঁধ ভাঙল। একেবারে ভেঙে পড়ে ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে কান্না। কেন এরকম হল কুন্তলাদি? কী বলব বলুন দেখি। ম আর ওর প্রেমিকের মধ্যে নানারকম সমস্যা চলছিল অনেকদিন থেকেই। ঘটনাটার অনিবার্যতা নিয়ে চেনামহলে কারোরই সন্দেহ ছিল না কিন্তু ওরা সম্পর্কটাকে টেকানোর চেষ্টা করছিল দুজনেই।

শেষে কান্না থামল। ম খুবই বুদ্ধিমতী মেয়ে, আবেগে ভেসে যাওয়ার সমস্যা আছে সামান্য, কিন্তু সেটা বয়সের দোষ। ও নিজেও বুঝতে পারছে যে যা হয়েছে হওয়ারই ছিল। কিন্তু তাও মন মানছে না। চায়ের কাপে চুমুক দিতে দিতে নিজেকে নিজেই বোঝানোর মতো করে পুরনো ঘটনা মনে করে করে আমাকে বলতে লাগল ম। কেন সম্পর্কটা টেকার ছিল না। কোথায় কোথায় কমপ্যাটিবিলিটির অভাব ছিল। ম অসম্ভব স্বাধীনচেতা মেয়ে। সমাজের প্রচলিত বেশিরভাগ কায়দাকানুনের সাথেই ওর চলনবলন মেলেনা, আর সেটা যে মেলেনা সেই নিয়ে ম-এর বিন্দুমাত্র মাথাব্যথা নেই। আমি ম-এর এই ব্যাপারটাকে শ্রদ্ধা করি। ম-এর প্রাক্তন প্রেমিক ওর থেকে অনেক বেশি ছাঁচে ঢালা। সেই ছেলেটিকেও আমি মন থেকেই পছন্দ করি।

ম-এর সেদিনের স্মৃতিচারণার মধ্যে একটা ঘটনা আমার মনে বিঁধে আছে। এই সমস্যাটাই অন্য অন্য চেহারায়, অন্য অন্য নারীপুরুষের সম্পর্কের ক্ষেত্রেও দেখেছি। দেখুন তো আপনাদের কী মনে হয়।

সমস্যাঃ

ম একবার একটা অর্থনৈতিক গোলমালে ফেঁসেছিল। সম্পূর্ণ নিজের দোষে। অতিরিক্ত বেপরোয়া হলে যা হয়। তবে গোলমালটা গুরুতর ছিল এই কারণে যে পরিণতি খারাপ হলে ম-এর টাকাপয়সা সংক্রান্ত ক্ষতি তো হতই, কেরিয়ারও মাটি হতে পারত। বাঁচা গেছে সেসব কিছু হয়নি। কর্তৃপক্ষ স্রেফ সতর্ক করে ছেড়ে দিয়েছেন।

“মনে আছে তোমার কুন্তলাদি?”

নেই আবার? ঘটনাটা শুনে আমরা কে কতবড় হাঁ করেছিলাম সেটা পর্যন্ত মনে আছে।

তখন ম স্বাভাবিকভাবেই প্রেমিকের কাছে ঝামেলাটার কথা বলেছিল। প্রেমিকও শুনে প্রথমেই হাঁ করেছিল। তারপর হাঁ বুজিয়ে বলেছিল, “ভেবনা সব ঠিক হয়ে যাবে। এইমুহূর্তে তোমার টাকার দরকার থাকলে আমি দিই? কত লাগবে লজ্জা না করে আমাকে বল সোনা।”

সেই শুনে সোনা একেবারে রেগে কেঁপে অস্থির। “আমি কি ওর কাছে টাকা চেয়েছি? কী করে ও ভাবতে পারল আমার নিজের ক্রিয়েট করা সমস্যা আমি ওর টাকা নিয়ে সলভ করতে চাইব? আমাকে দেখে কি সেরকম মেয়ে মনে হয়, সত্যি করে বল তো কুন্তলাদি? কী ভয়ানক শভিনিস্ট ছেলে ভাবতে পারো!”

কুন্তলাদি তখন চুপ করে ছিল বলাই বাহুল্য। মাথায় হাত বুলিয়ে বলেছিল, আরে পাস্ট ইস পাস্ট। যা হওয়ার তো হয়েই গেছে। ভাবিসনা। কিন্তু মাথার ভেতরে ঘটনাটা সেই থেকে যে ঘুরঘুর করতে লাগল, ছাড়া পেল এই আজকের সিরিয়াল মোনোগ্যামিস্ট পোস্টে।

কুন্তলার মতে

প্রাক্তন প্রেমিকের আরও লক্ষ লক্ষ দোষ থাকতে পারে, কিন্তু প্রেমিকা বিপদে পড়লে টাকা দিয়ে সাহায্য করার চেষ্টাটাকে যদি ম তার দোষ/শভিনিজম বলে চালাতে চায়, আমি সেটার ঘোর বিপক্ষে।

শভিনিজম দেখলে আমি চিনতে পারি, যে কোন মেয়েই পারে, ছেলেদেরও না পারার কোন কারণ নেই। ও দেখলেই চেনা যায়। এটা সেটা নয়।

যদিও ম-এর অযৌক্তিক প্রতিক্রিয়াটার উৎসটা আমি চিনি। “মেয়েরা প্রেমিকের পয়সায় খায় তাই গার্লস হোস্টেলে মেস বিল কম আসে” গোছের বহুলপ্রচলিত রসিকতা (অবশ্য আমার ধারণা ওটা রসিকতা নয়, রসিকতার মোড়কে গায়ের ঝাল)। বলাই বাহুল্য রসিকতাটা মেয়েদের সম্পর্কে কোন গভীর সত্য উন্মোচন করে না। ঠিক যেমন সান্টা সিং বান্টা সিং জোকস সারা বিশ্বের পাঞ্জাবিদের সম্পর্কে কিচ্ছু প্রমাণ করেনা। পরের ঘাড়ে কাঁঠাল ভেঙে খাওয়াটা একটা রোগ। যেটা ছেলে মেয়ে বাচ্চা বুড়ো সবার হতে পারে। হয়ও। লিঙ্গ বর্ণ জাতি ধর্ম নির্বিশেষে।

ম-কে যেটা মনে রাখতে হবে “মেয়েরা প্রেমিকদের পয়সায় খায়” এই সর্বজনীন সত্য দিয়ে যেমন মেয়েদের বিচার করা যায়না, ঠিক তেমনি “সব ছেলেই বিশ্বাস করে মেয়েরা অর্থনৈতিক সাপোর্টের জন্য তাদের সাথে সম্পর্ক রাখছে/ কিংবা কোন ছেলে টাকা দিয়ে সাহায্য করতে চাইছে মানেই প্যাট্রনাইজ করছে” গোছের মনোভাব পোষণ করাটাও একইরকমের ভুল। ছেলেদের ওপর একইরকমের অবিচার করা। তোমার প্রেমিক যেটা করেছে সেটা যে কোন স্বাভাবিক প্রেমিকই করত। করাই উচিত। যদি আমি তোমার জায়গায় থাকতাম, যদি আমার টাকাপয়সার সমস্যা হত আর সেটা জানার পরেও আমার প্রেমিক টাকা নিয়ে টুঁ শব্দটি না করত, তাহলেই বরং আমি সম্পর্কটা নিয়ে বেশি চিন্তিত হয়ে পড়তাম।

ঠিক যেমন সে যদি সমস্যায় পড়ত আর আমি যদি তাকে টাকা দিয়ে সাহায্য করার কথা না তুলতাম, তাহলে তার দুশ্চিন্তা করার ষোলোআনা অধিকার থাকত। 

জেন্ডার স্টিরিওটাইপিং খুবই হয় ম। ছেলেদের সাথেও, মেয়েদের সাথেও। মেয়েদের সাথে হয়ত একটু বেশি হয়ে এসেছে ঐতিহাসিক ভাবে। কিন্তু তাই বলে আমাদের প্রত্যেকটা ব্যক্তিগত সম্পর্ককে সেই কষ্টিপাথরে সর্বক্ষণ ঘষে ঘষে পরখ করতে গেলে ঠিকের চাইতে ভুল বেশি হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা। যেখানে দাঁড়ানো দরকার সেখানে সবসময় রুখে দাঁড়াবে, তোমার পাশে আমিও দাঁড়াব কথা দিচ্ছি, কিন্তু সর্বক্ষণ প্যারানয়েড হয়ে থেকে রজ্জুতে সর্পভ্রম করোনা। 

এবার আপনাদের মতামতটা শোনা যাক। 

39 comments:

  1. KHUB VALO LEKHA.....NIJEKE ARO AKTU SUDHRE NILAM ETA PORE......THANKS KUNTALA.

    ReplyDelete
    Replies
    1. কুহেলি তোমার কমেন্টটা পড়ে ভালোলাগা আর টেনশন একসাথে হল। কোনটা কীসে হল সেটা নিশ্চয় আর বলে দেওয়ার দরকার নেই। যেমন আছ পারফেক্ট আছ, কিচ্ছু শুধরোতে হবে না।

      Delete
  2. Replies
    1. গুড সোহিনী। ঠিক কিনা বল? কোন মানে হয়?

      Delete
  3. Total agree kintu ekta kotha boli, M to bachcha meye, oi boyesh e shobar i kom beshi strong feminist idea thake. Mane meyeder, cheleder o thake hoyto.Oi korte giye 99% time amader canteen e meyera i chop, cutlet, cha, biri khaoato. Bhabtam eitai nari swadhinta.

    Tobe joddiy shottiy M er X ke bhalo lagto, oi karon niye raag korleo, onyo karon e moter mil thik i hoto. "pick your battle" bole na...pore seitai kaaj e ashe.

    ReplyDelete
    Replies
    1. একদম ঠিক বলেছেন বং মম। আমার মনে আছে একবার ট্রেনে করে আমি আর আমার এক পুরুষ বন্ধু ফিরছিলাম। আমার সঙ্গে একটা মস্ত ভারি ব্যাগ ছিল। স্টেশনে নামার সময় বন্ধু বারবার বলছিল দে আমি নামিয়ে দিই, আমি কিছুতেই শুনব না। শেষে বেচারাকে শুকনোমুখে দাঁড় করিয়ে রেখে আমি ঘেমে নেয়ে, হাঁচোড়পাচোড় করতে করতে, প্রায় উল্টে পড়তে পড়তে সে ব্যাগ টেনে নামিয়েছিলাম। নামিয়ে যে কী গর্ব হয়েছিল সে কথা আর আপনাকে কী বলব। পুরো ঘটনাটা ঘটার সময় ট্রেনসুদ্ধু সবাই যে চোখ গোলগোল করে আমার দিকে চেয়ে চেয়ে দেখছিল, সেই লজ্জাটা ব্যাগ নামানোর গর্ব দিয়ে খানিকটা ঢাকা দেওয়া গিয়েছিল।

      এদিকে তার পরবর্তী জীবনে কত সত্যি সত্যি নারীস্বাধীনতাহরণের মুহূর্তে যে ক্যাবলার মতো চুপ করে দাঁড়িয়ে ছিলাম, কয়েকটায় তো সক্রিয় অংশগ্রহণও করেছি, ভাবতেও মাথা নিচু হয়ে যায় এখন...সে হিসেব কে রাখে।

      ম-এর এখন ঠিক আমার ওই ব্যাগ নামানোর বয়স। আর কয়েকবছর পরে দৃষ্টি অনেক পরিষ্কার হয়ে যাবে ওর, বলুন?

      Delete
  4. Amar nijero khub strong feminist (jodio ami "feminist" katha ta pachhondo kori na, tobu er kono alternative paini ekhono obdi tai bolchi) feeling chhilo ek somoy. Kintu, ekhon jeta bujhechi seta holo "equal treatment" jinish ta beshi dorkar. M er boy friend jeta korechilo, ekta manush hishebe tar setai kora uchit chhilo. M er boyfriend jodi ei financial stress e porto tahole M nije ki eta bolto na? Na bollei to ashchorjer! Ami jokhon sobe graduate korte cholchi amar bank account e $200 moto chhilo, tokhon Arnab amay taka pathiyechilo. Amar dorkar chilo tai...setai to "team work". Aj jodi M der biye hoye jeto ar M er job thakto na, tokhon ki M or husband er takay thakto na? Tobe?
    Ei particular byapar tay etao bhabte hobe, M jodi katha ta or boyfriend ke na bole khub bhalo ekta meye-bondhu ke bolto tokhon ki sei bondhu o eki katha bolto na? Ar sei financial help ke M ki bolto?
    Eta "nari swadhinota" na, eke bole "paye pa diye jhogra kora". M er boyesh kom, she has time to mend her ways. Na holey ei manush ra pore songshar e nana utpat srishti kore.
    Ar hya, "gender stereotyping" ba je kono role stereotype korai OTYONTO murkher moto kaj... protyekta manush alada, sudhu manush keno, kukur-beral-machh-pakhi sobari ekta individuality ache, seta na mene neya mane nijederi oti murkho prove kora.

    ReplyDelete
    Replies
    1. এটায় দুইহাত তুলে, টেবিল চাপড়ে তোমার সঙ্গে সহমত প্রকাশ করছি আমি রিয়া। "ইকুয়্যাল ট্রিটমেন্ট", ইয়েস। বাকি সব হাওয়ায় ভাসানো কথা। মেয়েবন্ধুদের কথাটাও ঠিক বলেছ। আমি যদি টাকাটা ম কে দিতে চাইতাম আর তাতে যদি ওর আপত্তি না থাকত, তাহলে বোঝা যাচ্ছে ম-ই আসলে ছেলে মেয়ের মধ্যে প্রভেদ করছে। মেয়েরা টাকা দিয়ে সাহায্য করলে নো প্রবলেম আর ছেলেরা করলেই মেল শভেনিজমের নির্লজ্জ বিজ্ঞাপন, এইটা জাস্ট হলনা আরকি।

      Delete
  5. আমি একটু বোকা টাইপের কিনা, তাই সহজ কথাগুলো বুঝতে সময় লাগে। যেমন দুটো ঘটনার টাইমিং বুঝতে পারছি না। ওই টাকা ধার দেওয়ার অফার টা দিয়েছিল বলেই কি ব্রেক-আপ হয়েছে?

    অপশন ১ - হ্যাঁ, তখনই ব্রেক-আপ হয়েছে
    এরকম যদি হয়ে থাকে তাহলে আমি রিয়া এবং কুন্তলাদির সাথে একমত, রজ্জুতে সর্পভ্রম করা হচ্ছে এখানে। এক্স যা করেছে এটা খুবই ন্যাচারাল ব্যাপার, সবাই তাই করত।

    অপশন ২ - না, ব্রেক-আপ পরে হয়েছে
    তাহলে তখন ব্রেক-আপ করলে না কেন মা? তখন বন্ধুত্ব ছিল বলে ব্যাপারটা মিটিয়ে নিয়েছ, আর এখন বন্ধুত্ব ভেঙে গেছে বলে খুঁজে খুঁজে দোষ বের করছ? ছোটলোক আর কাকে বলে?

    ReplyDelete
    Replies
    1. এক্ষেত্রে অপশন ২ টা ঘটেছিল দেবাশিস। আপনি প্রেমের আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তুলে ধরেছেন মন্তব্যে, যতদিন প্রেম থাকে ততদিন সে একেবারে রাজপুত্তুর/কন্যা, আর প্রেম কাটলেই রিকশাওয়ালা/ঘুঁটেকুড়ুনি। এ যে কত দেখলাম।

      তবে এখানে একটা কথা স্বীকার না করলে চলছে না। ব্রেকআপের পর খুঁজে খুঁজে দোষ বার করার দোষটা আমি নিজে করেছি। খুবই অন্যায় হয়েছে, কিন্তু কী করব ওই মুহূর্তে গায়ের ঝাল মেটানোর আর কোন রাস্তা চোখের সামনে দেখতে পাচ্ছিলাম না *কাঁদোকাঁদো মুখ*।

      Delete
  6. Ami tomar sathe ekmot. jekono swavabik khub kachher bandhu der ke amra ei financial help korar ba tar prostab deoar adhikar diye thaki. relation e equal treatment er balance thaka ta porospor ke personal space deoar moto e joruri.

    Ghotona ta pore andaj korlam ei taka poisa len-den er prostab ta break up er kichu somoi age e esechhilo. Pore thanda mathai bepar ta bhebe dekhe hoito M er o prostab ta r apottijonok theke ni. Tai to relation ta tekanor o chesta kore chhilo.

    tobe kina ekhon break up hoyechhe soddo.. break up er somoi ta boro crutial.. sei somoi ex-boyfriend koto bhalo ba swavabik chilo... amar bipod e pase darate cheyechhilo eisob mone korle mon kharap r o barbe. tai ekhon sob kichu te e dosh dekhte pele borong break up ta sojjo korte subidha hobe, tai na.. ki bolo...

    ReplyDelete
    Replies
    1. তোমাকে তাহলে সাহস করে একটা সত্যি গল্প বলি গোবেচারা। সম্পর্ক নিয়ে টালমাটাল চলার সময় একজন আমাকে পরামর্শ দিয়েছিল একটা কাগজে দুটো খোপ কেটে একটা খোপে প্রেমিকের গুণ আরেকটা খোপে দোষ মনে করে করে নম্বর দিয়ে দিয়ে লিখতে। যে দোষগুণগুলো লোকের সামনে বলা যায় সেগুলো, আর যেগুলো মরে গেলেও কাউকে বলা যায়না, সেগুলোও। তারপর সেই দোষ গুণের তালিকা মিলিয়ে দেখে সিদ্ধান্ত নিতেঃ রাখব না ছাড়ব।

      পরামর্শটা শুনলে ভয়ঙ্কর ঠেকতে পারে, কিন্তু খুব অযৌক্তিক কি?

      তুমি যে বললে এখন ম-এর বরং খুঁজে খুঁজে প্রেমিকের দোষগুলোই বার করা উচিত, সেটা শুনে ঘটনাটা মনে পড়ে গেল।

      Delete
  7. অপরাধ নেবেন না... ইংরেজি হরফে বাংলা লেখা পড়তে আমার বড়ো অসুবিধে হয় বলে ওই কমেন্টগুলো পড়িনি... তা বাদে বাকিগুলো পড়লাম... শুধু লাইক বাটন টার অভাবে অনেকগুলো লাইক করা গেলো না... :P :)

    ReplyDelete
    Replies
    1. যাঃ, ইংরিজিতে কমেন্ট-করিয়েদের লস।

      Delete
  8. Reea-r kothatai ashol kotha. Protyek-ta manush shoman, kintu ek noy. amar kichhu meye bondhuder modhdhey ei adbhut complex dekhechhi. tara chheleder shoman howar cheshta korte giye guliye fele chheleder shonge ek howar cheshta korey. aar ei bhul-ta ami oder kokhono bujhiye uthte parini. majhkhan theke amar gaye chauvinist-er tokma lege gechhey :(

    ReplyDelete
    Replies
    1. Caco Mukho, আমি আপনার কমেন্টটার সাথে একমত কিনা ঝট করে বলতে পারছিনা, কারণ আমার মনে হচ্ছে আমি সমান আর এক কথাদুটোর মানে ঠিক বুঝিনি। আচ্ছা ধরুন কোন মেয়ে ঘোড়ায় চড়তে চায় (এটা একেবারেই ফিগারেটিভলি বলছি, প্রচুর মেয়েই ঘোড়ায় চড়ে এবং প্রচুর ছেলেই চড়ে না। কিন্তু এই মন্তব্যের খাতিরে আমি ধরে নিচ্ছি যে ঘোড়ায় চড়াটা ছেলেদের কাজ আর রান্না করাটা মেয়েদের কাজ) তাহলে কি আপনি বলবেন যে মেয়েটি ছেলেটির সাথে "এক" হওয়ার চেষ্টা করছে এবং সেটা ভুল? বা যদি একটা ছেলে রান্না করতে চায়, তাহলে কি সে ভুল করছে?

      আর লোকে কী বলল তাতে কিছু এসে যায় না, আপনি নিজে তো জানেন আপনি কী। সেটাই যথেষ্ট।

      Delete
    2. oh! taholey ektu bujhiye boli. proshno hochhey meyeta keno ghoRa-y choRte chaye? shokh? taholey aboshshoi korbe! je jaar ichhey tai korbe, taate badha ditey jawa to byaktishadhinota-y hostokkhep hoye gelo. tai na? ta keno chaibo?
      kono kaaj-i alada bhabe chheleder ba meyeder na. tofaat kothay jaanen? kaaj-ta keno korchhey? aar shekhanei amar obhigyota theke bolchhi, onek meyei kichhu kaaj korar cheshta kore shudhu eita dekhanor jonno je tara sheta chheleder moto, ba taar cheyo bhalo paare. dhorun sheta dekhalo. to? ki promaan holo? aar jeta mone korchhey je proman korlo, sheta ki promanshapekkho chhilo adou? meye aar chhele to shoman hoyei jonmaye (amader shomajer prejudice discount kore bolchhi) aar shomar hoye mara jaye. alada kore proman korte hobey keno? shobaike shob shujog dewa hok, kintu taar opor ei chaap keno thakbe je ei shoman howata proman korte hobey kichhu ekta kore dekhiye?
      kintu eta to manben je chhele aar meyera kokhonoi ek hobey na. taater nijoshsho boishishto thakbe, nijoshsho durbolota. taate tara keu boro/chhoto hoye jaye na. apnar udahoroner meyeta jodi ghoRa theke poRey jaye, ar ekta chhele jodi poRe na jaye, shey etai proman korbe je shey aar chheleta ek noy. kintu shoman-i thakbe. chirokaal.
      kichhu bojhate parlam ki?
      aar amar ashol naam Somnath Mukujje. amay Somnath dakte paren.

      Delete
  9. Amar mone hoy Caco bolte chaiche (amio jeta bhabi ar ki), soman hoya mane gayer jore marpit kore soman hoya. Tumi jemon bag namate giye korechile :P Ar equal ba ek hoya mane, ami bag namate parchi na, tui namiye de abar jokhon tui kichhu parbi na ami kore debo.
    Tomar example e bolte gele, kono meye jodi sokh kore ghoray chorte chay seta "soman dekhano" na, tobe "chhele ra chore bolei ami chorbo" bhable seta hobe. Puro byapar tai hochhe ke kon mentality te nichhe jinish ta. Aro boli, sei manush ta nije ki bhebe korche setai ashol katha, onyo loke ki bhabche seta noy.

    ReplyDelete
    Replies
    1. tai-i bolte chaichhilam. khali terminology ulte gechhey. ami likhechhilam equal = shoman. jor kore shob byapare shoman dekhate chawata ek howar cheshta.

      Delete
    2. হুম। এখন মনে হচ্ছে বুঝতে পেরেছি সোমনাথ, এবং রিয়া। আপনারা/তোমরা বলতে চাইছেন মেয়েরা ছেলেদের টোকে। ছেলেদের সমান গরিমা পাওয়ার আশায়। কিছু কিছু ক্ষেত্রে কথাটা সত্যি। দিব্যি শান্তশিষ্ট মেয়ে স্কুল থেকে কলেজে পা দিয়েই মুখে গালাগালির তুবড়ি ছোটাতে শুরু করে দিল, স্রেফ ছেলে বন্ধুদের ইমপ্রেস করবে বলে। স্রেফ ইমপ্রেস করতে গিয়ে যে কত মেয়ে সিগারেট আর গাঁজা ধরল আর ফ্রি সেক্সে বিশ্বাস করতে শুরু করল, সে উদাহরণ আমিও কম দেখিনি।

      জেনারালাইজ করছি না। অনেক মেয়েই করে না, অনেক মেয়েই করে। অনেক ছেলেও করে। কুল দাদাদের টুকতে গিয়ে সিগারেটের হাতে ফুসফুস বলি দিয়ে দেয়।

      তবে গল্পটা এখানে শেষ করে দিলে একটা খুব জরুরি বিষয় বাদ পড়ে যায়। কেন টোকে? আপনারা বলতেই পারেন যে মেয়েরা মানুষ হিসেবে নিকৃষ্ট তাই টোকে। মেয়েরা দুর্বল, নিরাপত্তাহীনতায় ভোগে তাই টোকে। কই ছেলেরা তো মেয়েদের টুকে কথায় কথায় খিলখিলিয়ে হাসে না কিংবা ঠোঁটে লিপস্টিক ঘষে না।

      টোকে কারণ আমাদের সমাজে এখনও ছেলেদের কাজকে মেয়েদের কাজের থেকে বেশি সম্মান দেওয়া হয়। হ্যাঁ, গালি দেওয়া বা বুলি করাকেও অকারণে খিলখিলিয়ে হাসির তুলনায় ঢের বেশি কাজের কাজ মনে করা হয়। লিপস্টিক মাখা ভয়ানক শ্যালো, কিন্তু বউকে প্রত্যেক পার্টিতে বেরোনোর আগে "তোমাকে এই শাড়িটা পরলে ভালো দেখাবে" বলে শাড়ি বেছে দেওয়াটা "কেয়ারিং", মেয়েরা ছেলেদের দিকে কটাক্ষ করলে সেটা "ছেলেধরা বিজনেস" আর রাস্তাঘাটে আকর্ষণীয় মহিলাদের প্রত্যঙ্গের দিকে তাকানোটা "অ্যাপ্রিশিয়েশন"--আমি এগুলো একটাও পেটে বানিয়ে বলছি না। প্রত্যেকটা লোকে নিজে মুখে আমাকে বলেছে। আমি নিশ্চিত আপনাদেরও বলেছে কেউ না কেউ।

      আমি জানি কমেন্টটা অত্যন্ত লম্বা হয়ে যাচ্ছে কিন্তু আর একটু ধৈর্য ধরুন প্লিজ। আমার এক অসম্ভব প্রগতিশীল ছেলেবন্ধু আছেন। আমি তাকে ভয়ানক পছন্দ করি। অসম্ভব বুদ্ধিমান ছেলে, ভালো ছাত্র, ভীষণ মজা করে কথা বলতে পারে, চোখ কান খোলা এবং আরও প্রচুর প্রচুর ভালো গুণ আছে তার।

      কিন্তু তিনি সর্বদা তটস্থ হয়ে থাকেন এই বুঝি নারীদের স্বাধীনতা খর্ব করে ফেললেন। খেতে বসে বিষম খেলে মেয়েদের দিয়ে জল আনান না, কোন মেয়ে লাফিয়ে জল আনতে উঠলে চেপে ধরে বসিয়ে রেখে নিজে গিয়ে জল এনে খান।

      সে মনে করে মেয়েদের রান্না করা, উল বোনা, রবীন্দ্রসঙ্গীত শেখা এসব সমাজের চক্রান্ত। মেয়েদের ভেতর সারভাইল অ্যাটিচিউডের জন্ম দেওয়া। কাজেই মেয়েদের উল বোনা ব্যান করে দেওয়া উচিত। চেনামহলে কোন মেয়ে উল বুনছে দেখলে সে নাক কুঁচকোয়, বলে "বোঝা গেসে, এর দ্বারা কদ্দুর হবে", আমি তার সাথে একদিন অনেক তর্ক করেও বোঝাতে পারিনি যদি উল বোনা খারাপ হয় তাহলে অফিসের কাজ ফাঁকি দিয়ে IPL নিয়ে গলা ফাটানোও খারাপ। ইন ফ্যাক্ট অনেক বেশি খারাপ। কাজেই উল বোনা ব্যান করে মেয়েদের উন্নতি করার আগে IPL নিয়ে অফিসটাইমে কথা বলা আগে বন্ধ করা উচিত।

      বলাই বাহুল্য কিছুতেই বোঝাতে পারিনি, কারণ তিনি নিশ্চিত ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা উলবোনার থেকে উন্নতমানের কাজ।

      JEE-IIT-র রেজাল্ট বেরোলে শুনেছি রসিক সিনিয়রেরা খুব নিচের দিকের র‍্যাঙ্কের মেয়েদের নামের পাশে লিখে রাখে (ডিসক্লেমারঃ আমার নামের পাশে লেখা হয়নি। আমি জয়েন্ট দিইনি, কাজেই গায়ের ঝাল ঝাড়ছি না), "তুমি বরং রান্নাই কর মা", আমি আজ পর্যন্ত শুনিনি কোন খারাপ র‍্যঙ্কিং-এর ছেলের নামের পাশে লেখা হয়েছে, "তুমি বরং রকবাজিই কর বাবা, কিংবা অটো চালাও" কারণ কে না জানে রকবাজি কিংবা অটো চালানো, দুটো কাজই রান্না করার থেকে বেশি পুরুষালি, তাই কম লজ্জার।

      এইবার যদি কোন নিরাপত্তাহীনতায় ভোগা, দুর্বল চরিত্রের মেয়ে রান্না করা কিংবা উল বোনা ছেড়ে IPL নিয়ে মতামত দিতে শুরু করে, রকে বসে ঊরু চাপড়ে গলা ফাটায় কিংবা অটো নিয়ে রাস্তায় নামে, তখন সবাই মাথা নেড়ে বলবে, "হয়নি হয়নি, টুকছে টুকছে।" দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে বলবে, "কিন্তু ওর তো কিছু প্রমাণ করার দায় ছিলনা, ছেলে আর মেয়েরা তো আলাদা, সবার তো নিজের নিজের জায়গা আছে..."

      নিশ্চয় আছে, তবে জায়গাটা ছেলেদের থেকে সামান্য নিচে। ওইটুকুতে কিছু এসে যায় না।

      আমি বলি তার থেকে সমস্ত কাজ, কথা, চিন্তার গা থেকে "ছেলেদের" আর "মেয়েদের" লেবেলগুলো টেনে ছিঁড়ে ফেলি বরং। যাতে আর কোনোদিন কাউকে কিছু প্রমাণ করার পরীক্ষায় না নামতে হয়।

      রিয়া, সোমনাথ---নিশ্চয় বলে দিতে হবে না, এটা ব্যক্তিগত আক্রমণ নয়। আমার নিজস্ব মত।

      Delete
    3. Ei katha ta tumi otyonto bhalo bolecho....JEE'r rank e lekha byapar ta ami dekhini (hoyto amader somoy electronic hoye gechilo bole) kintu oti apoman jonok byapar eta. Ami kauke korte dekhle khub rege jetam, jhogra/marpit kortam. Ami erokom lok o dekhechi jara office e junior mohila der theke kono boktobyo shunle birokto hoy. (Eta amar nijer hoyeche, ek developer ke defect file korchilam, shey murkho bujhtei parchilona defect gulo ki, segulo bujhiye bolay birokto hoyechilo - "ki? ei meyeta amay bolbe kikore programming korte hoy?" ei jatiyo byapar.) Mohila driver der to sobai nirbichare gali daye, tar mane ki ei je chhele driver ra accident kore na, rash drive kore na? Onek beshi kore. Science/engineering/maths er katha to chherei dilam.

      Ei sober thekei meyeder "cool", "smart" ityadi dekhanor procheshta. Tobe cause ta jayi hok, effect ta bhalo na. Eta overcome korte hobe, meyeder, chheleder, sobai ke.

      Delete
    4. হাই ফাইভ রিয়া। সব্বাইকে ওভারকাম করতে হবে।

      সোমনাথ, আমার এইবার টেনশন হচ্ছে। রাগ করলেন? মত না মিললেও রাগ করবেন না প্লিজ, হ্যাঁ?

      Delete
    5. raag korbo? keno???!! amay etota immature bhaben? :(
      aar bolechhilam na, apnaar biraat fan ami. raag korte parboi na.

      Delete
    6. বাঁচালেন।

      Delete
  10. Jano to Kuntala Di, amar ek bondhu tar hobu husband er sathe eksathe thake.. husband ti roj raat e bari fire amar bondhu ke diye din er samosto hiseb excel sheet e update korte bole... eta k tumi ki bolbe hisebi-pona na chauvinism?
    dabi ta onekta eirokom... ekta meyer kena jinis guloi useless, unnecessary and ghor sajano.. othocho ogulo'r sathe je sokaler muesli bikeler chicken wings theke.. mosha taranor dhup, shaving cream r chhele tar kerchief - boxer, wkend er beer tao thake seta bhule jay probably!!!

    ReplyDelete
    Replies
    1. হাহা রু, হবু বরটি একটু অতিরিক্ত হিসেবি মনে হচ্ছে। আহা এক্সেল শীটে তো ঘরসাজানো আর মুয়েসলি দুটোরই প্রমাণ থাকছে, চিন্তা কী? আর কথা শোনানোর কথা যদি বল, বন্ধুকে উপদেশ দাও দুটো কান খোলা রাখতে। এক কান দিয়ে শুনে আরেক কান দিয়ে বার করে দেবে। সিম্পল।

      Delete
  11. post ebong comments gulo daroon.....gave me a chance to "revisit" my younger years. nijer experience theke bolte pari je bhaggis ek samay cheleder tukechhilam. nahole jibon e anek kichu theke bonchito thaktam. btw ekhon aar tukte hoyna, tukte tukte oi jinis gulo passion hoye gechey :)))

    ReplyDelete
    Replies
    1. অ্যাকচুয়ালি পোস্টের থেকে কমেন্টগুলো একশোগুণ বেশি ভালো।

      Delete
  12. হমম . এরকম হয় .ব্যাপারটা ঠিক বুকিশ "ফেমিনিসম" না . 'ম' কিভাবে বড় হয়েছে তার ওপর ডিপেন্ড করছে অনেকটা . আমাদের সমাজে মেয়েদের দু ভাবে বড় করা হয় .
    ১) তুমি মেয়ে ,মেয়ের মতো থাকো
    ২) তুমি মেয়ে হলে কী হবে , আমরা চাই তুমি ছেলেদের মতো হও ( বাপেরা খুব গর্বে করে বলেন :সী ইস মায় সান .)

    .... এই দুটোই বিশ্রী গ্যাঁড়াকল যেখান থেকে বেড়োতে বেড়োতে একটি মেয়ের প্রায় মধ্যবয়েস হয়ে যায়. অনেকে সারাজীবনেও বেড়োতে পারে না . আমি আগে এরকম দেখলে হেব্বি রেগে গিয়ে দুকথা শুনিয়ে দিতুম . ভাবতুম যুক্তি দিয়ে কড়া করে বল্লে জ্ঞানচক্ষু খুলবে . পরে বুঝেছি এটা অনেক ডীপ রুটেড ইনসিকিওরিটি . অত সহজে যাবার নয় .

    এখন বেশ ঠান্ডা মাথায় ভেবে চিন্তে বলি . ব্যাপারটা এরকম থাকে .. কী আর করা যাবে বল. খরচা তো যা হবার হয়েছে . কিন্তু মাথার ওপর টাকার চাপ নিয়ে তো কোনো সুস্থ ভাবনাচিন্তা করা যায়না . বরং চল পেমেন্ট টা করে দি . তারপর একটা কষে প্ল্যানিং করতে হবে এমন যেন না হয় আর . ( ওই টাকার ঝঞ্ঝাট আমারও ঘটেছে আর কী :( )

    এরকম যে কত ক্ষেত্রে বল্লে মহাভারত . আমার তিনি মেরিন বায়োলজিস্ট . ভয়ঙ্কর দুরন্ত .সমস্ত ভারী কাজ আগ বাড়িয়ে করাতেই তার আনন্দ . কিছুটা বুঝিয়েছি .... ওসব হিরোগিরি করিসনা , লোকে এক্সপ্লয়েট করে . কিছুটা বুঝেছে. অনেকটাই না .

    তবে ওই আরকি , কোনো মানুষ কে এপ্রোচ করার সময় তার আপব্রিংগিং তার আন্দাজ থাকলে সেইভাবেই কথা বলতে হয় . এটা অভিনয় নয়. জাস্ট স্পীকিং দেআর ল্যাঙ্গুএজ.
    আম্মো কী ছাই সবসময় পারি নাকি :(

    ReplyDelete
    Replies
    1. অলর্ক, মেয়ে বড় করার শ্রেণীবিভাগটা আপনি একেবারে যাকে বলে প্রোভার্বিয়াল নেল-কে হেডে হিট করেছেন। আমি এখনও বাড়ি গিয়ে বাজার থেকে ঠাকুমার জন্য কুড়কুড়ের প্যাকেট কিনে নিয়ে গেলে ঠাকুমা খুব খুশি হয়ে সবাইকে দেখিয়ে দেখিয়ে বলে "আমার নাতি নাই ত কী হইসে, নাতনিই নাতির কর্তব্য করতাসে" কী ঝামেলা বলুন দেখি।

      আপনার সাথে আমিও একমত। পৃথিবীর সবার সাথে এভাবে ব্যবহার করা সম্ভব না জানি, দরকারও নেই, কিন্তু দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে উল্টোদিকের লোকের সাথে চারদিক ভেবে কথা বলাই ভালো।

      Delete
  13. আরেক টা কথা . এইরকম ভূত ছেলেদের মাথাতেও চাপে সমাজ
    হিরো হতে হবে +কথা বলার সময় হাত নাড়বে না ,কাঠের মূর্তি মতো দাঁড়িয়ে ষাঁড়ের মতো চেঁচানো টা পুরুষালি পস্চার + লোকের সামনে কাঁদবে না + সাজবে না ,সাজুগুজু করা +হাতে কঙ্গন নানারকম আংটি এসব পড়া মেয়েদের লক্ষণ + একটু বয়েস বাড়লেই দুনিয়ার যত দুর্ভিক্ষমার্কা ফ্যাকাসে রঙের পোশাক পড়বে (ওতে নাকি "গ্রাভিটি" আসে ) ব্লাহ ব্লাহ

    এইসব স্টিরিওটাইপ যে কবে আপদ বিদেয় হবে !!!

    ReplyDelete
    Replies
    1. ইয়েস! সেটাই তো। ছেলে বেচারাদেরও যে কত কথা মাথায় রাখতে হয়। আমার এক বন্ধু একবার রেস্তোরাঁয় ককটেল অর্ডার করে যখন দেখল সেটা স্বপ্নের মত নীল রঙের একটা বস্তু, তন্বী গেলাসের মাথায় কিউট ছাতা পরিয়ে আর কমলালেবুর খোসার ওড়না পরিয়ে পরিবেশন করেছে, তখন তার প্রায় মূর্ছা যাওয়ার জোগাড়। "এটা আমি কী করে খাব!" কিছুতেই খেল না জানেন? উপস্থিত এক মহিলার ককটেলের সাথে বদলাবদলি করে তবে ছাড়ল। বেচারা।

      Delete
    2. Amar ek bondhu dove er ekta shampoo mauve bottle e chhilo bole keneni. Ami bolechilam ke tor bath tub er paare boshano bottle er rong dekhte ashche? Kintu shey shoneni. Matha nere bolechilo, "that is too girlish". Bojho abastha!
      Tobe meye der boro korbar ei duto podhhoti ami thik mante parlam na. Amra dujone (mane Bhut ar ami) keu-i ei dubhaber modhye boro hoyi ni. Amader life e priority chilo porashuno, pore kajkormo, kintu sebhabe "chheleder" moto hotey hobe kokhono shunini. Ar amader keu "she is my son" o boleni...ekhono bolena :P

      Delete
    3. না গো রিয়া, তোমাদের হয়ত বলা হয়নি, আমাকেও হয়নি। বরং বলা হয়েছিল ছেলে আর মেয়ে আলাদা আলাদা কিন্তু সমান সমান (তুমি আর সোমনাথ যেটা বলেছ এক্স্যাক্টলি সেটা বলা হয়েছিল আমাকে ছোটবেলায়), কিন্তু আমি অলর্কর কথাটা সম্পূর্ণ বিশ্বাস করতে পারি। এটা হয়। খুবই হয়। এবং এটা যে ঘোরতর ভুল হচ্ছে সেটা না বুঝেই হয়। মানে নিরঙ্কুশ ভালো চেয়েই মেয়েদের অভিভাবকেরা মেয়েদের "ছেলেদের মতো করে" বড় করতে উঠেপড়ে লাগেন।

      Delete
  14. Kuntala : Google na kore boloto eta kotha theke? :)

    Gauvain went on,—

    "And woman—what use do you make of her?"

    Cimourdain replied,—

    "Let her be what she is, the servant of man."

    "Yes. On one condition."

    "What?"

    "That man shall be the servant of woman."

    "Is that your belief?" exclaimed Cimourdain. "Man a servant! Never. Man is master. I admit but one royalty, that of the fireside. Man is king at home."

    "Yes. On one condition."

    "What is that?"

    "That woman be queen there."

    "That is to say that you want for man and for woman──"

    "Equality."

    "Equality! Are you dreaming? The two beings are different."

    "I said equality. I did not say identity."

    ReplyDelete
    Replies
    1. হাত তুলে দিলাম। জানিনা। কোথা থেকে?

      Delete
    2. আমি আমি জানি জানি...

      Delete
    3. eta Ninety Three by Victor Hugo. onek chhotobela-y poRa (ingriji onubaaad) - tokhon moner opor ekta chhap felechhilo.

      Delete

 
Creative Commons License
This work is licensed under a Creative Commons Attribution-NonCommercial-NoDerivs 3.0 Unported License.